আজ শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

গোলাপগঞ্জে আওয়ামীলীগে নতুন মেরুকরণ


লুৎফুর সভাপতি, রাবেল  সাধারণ সম্পাদক

বিশেষ প্রতিনিধি:: গোলাপগঞ্জে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে দেখা দিচ্ছে নতুন মেরুকরণ। গত ১৩ নভেম্বরের কাউন্সিলে কমিটি গঠিত না হওয়ায় দুটি পক্ষের সৃষ্টি হয়ে অবরোধ সভা পাল্টা প্রতিবাদ সভা  উত্তপ্ত করে গোলাপগঞ্জের রাজনৈতিক অঙ্গন। এ নিয়ে চলছে নানা হিসাব নিকাশ।

গোলাপগঞ্জের আওয়ামীলীগের অনেকের প্রশ্ন বিয়ানীবাজারে কাউন্সিলারদের ভোটে কমিটি গঠিত হলে গোলাপগঞ্জে কাউন্সিলারদেরকে ভোট থেকে বিরত রাখা হল কেন? বিষয়টি অনেকের কাছে সন্দেহের সৃষ্টি করেছে। সাবেক শিক্ষামন্ত্রী স্থানীয় সংসদ নুরুল ইসলাম নাহিদের নির্বাচনী এলাকা গোলাপগঞ্জ ও বিয়ানীবাজার উপজেলা নিয়ে গঠিত। নুরুল ইসলাম নাহিদের নিজ উপজেলার চেয়ে সব সময়ই তিনি গোলাপগঞ্জে বেশি ভোট পেয়েছেন।

তারপরও কেন গোলাপগঞ্জে কমিটি গঠনে ভোট থেকে দূরে রাখা হয়েছে তৃণমূল নেতাকর্মীদের। এ নিয়ে উপজেলা জোড়ে চলছে নানা গুঞ্জন। পুলিশী প্রহরায় নুরুল ইসলাম নাহিদসহ  আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ সভাস্থল প্রত্যাবর্তনের বিষয়টি মিডিয়ায় বেশ কাভারেজ পায়।

আগামীতে কিভাবে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি হচ্ছে, কারা আসছেন নেতৃত্বে এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা পর্যালোচনা। একটি সূত্রে জানা যায় নুরুল  ইসলাম নাহিদ চান তার পক্ষের লোক রফিক আহমদ সভাপতি ও সৈয়দ মিছবাহ উদ্দিন যেন সাধারণ সম্পাদক হন। তিনি কোন ভাবেই তার মতের বিরোধী কাউকে আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে দেখতে চান না। এ জন্যই তিনি ভোটের মাধ্যমে কমিটি গঠন করতে চাননি বলে তার প্রতিপক্ষের লোকজনের অভিযোগ। অন্যদিকে সভাপতি পদে লুৎফুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক পদে সাহাব উদ্দিনের নাম ছিল বেশিরভাগ ভোটারের মুখে মুখে।

ভোট না হওয়ায় তাদেরও স্বপ্ন বিলীন হয়ে গেল। বিষয়টি বর্তমানে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের হাতে বলে একটি বিশেষ সূত্রে জানা যায়। সিলেটের দায়িত্ব প্রাপ্ত কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসনের সঙ্গে এ ব্যাপারে সম্পৃক্ত হয়েছেন কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হানিফ। তারা একটি গ্রহণযোগ্য কমিটি উপহার দেওয়ার জন্য সিলেট জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করছেন বলে দলীয় সূত্র জানায়।

বিরোধ নিরসনের লক্ষ্যে লুৎফুর রহমানকে সভাপতি ও নুরুল ইসলাম নাহিদের বিশ্বস্ত লোক গোলাপগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আমিনুল ইসলাম রাবেলকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি গঠনের লক্ষ্যে কাজ চলছে বলে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়। গোলাপগঞ্জের আওয়ামী পরিবারের বিরোধ নিরসনে লুৎফুর রহমান ও রাবেলকে নিয়ে কমিটি গঠিত হলে সাধারণ নেতাকর্মীদের আস্তা তাদের প্রতি থাকবে বলে অনেকের ধারণা। শেষ পর্যন্ত লুৎফুর রহমান সভাপতি ও আমিনুল ইসলাম রাবেলকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা হতে পারে এমন আভাস পাওয়া গেছে।

এ বিভাগের আরোও সংবাদ