আজ শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং

যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেস আজ

অনলাইন ডেস্কঃ ক্যাসিনোঝড়ে হারানো ভাবমূর্তি পুনরুদ্ধার আর ঘুরে দাঁড়ানোর চ্যালেঞ্জ নিয়ে আজ শনিবার ঢাকায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে আওয়ামী যুবলীগের সপ্তম জাতীয় কংগ্রেস। বেলা ১১টায় ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কংগ্রেসের উদ্বোধন করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মূল কংগ্রেস মঞ্চ নির্মিত হয়েছে পদ্মা সেতুর আদলে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতুর ওপর বসে কংগ্রেস (সম্মেলন) দেখছেন ও বক্তৃতা করছেন- এমন একটি আবহ তৈরির ব্যবস্থা এটা।

উদ্বোধনী অধিবেশন শেষে বিকাল ৩টায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে কংগ্রেসের দ্বিতীয় পর্ব কাউন্সিল অধিবেশন। সেখানে হবে নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন। সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিসহ সারা দেশের ৭৭টি সাংগঠনিক জেলা ও ৮টি জেলার মর্যাদাসম্পন্ন বৈদেশিক শাখার প্রায় ৩ হাজার কাউন্সিলর ও প্রায় ২৫ হাজার ডেলিগেটস এবং ৮ হাজার অতিথিকে কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। নেতারা বলছেন, ক্যাসিনো ও দুর্নীতিবিরোধী অভিযানে সংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের অনেক নেতার বিরুদ্ধে অপকর্মের অভিযোগ ওঠায় যুবলীগ এই মুহূর্তে প্রচন্ড ভাবমূর্তি সংকটে রয়েছে। সাংগঠনিক কার্যক্রমেও অনেকটা স্থবিরতা নেমে এসেছে। ফলে সংগঠনের হারানো ভাবমূর্তি ফিরিয়ে আনাসহ সংগঠনকে গতিশীল করাই এবারের কংগ্রেসের জন্য কঠিন চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেই চ্যালেঞ্জ উত্তরণে কংগ্রেসের মাধ্যমে স্বচ্ছ ও পরিচ্ছন্ন ইমেজের ত্যাগী ও দক্ষ নেতাদের সংগঠনের নেতৃত্বে নিয়ে আসার প্রচেষ্টাও রয়েছে। ২০১২ সালের ১৪ জুলাই হয়েছিল যুবলীগের ষষ্ঠ জাতীয় কংগ্রেস। প্রায় সাড়ে সাত বছর পর সপ্তম কংগ্রেস হচ্ছে। তাই নেতা-কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা সৃষ্টি হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে গত ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে ক্যাসিনো ও দুর্নীতিবিরোধী অভিযান শুরু হলে যুবলীগের কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগরের বেশ কয়েকজন নেতা গ্রেফতার হন। ক্যাসিনোকান্ডে সম্পৃক্ততা এবং দুর্নীতি ও অপকর্মের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে অভিযুক্ত অনেকেই আত্মগোপনে চলে যান।

যাদের সবাই পরে সংগঠন থেকে বহিষ্কৃতও হন। গত ২০ অক্টোবর গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যুবলীগ নেতাদের বৈঠকে পদবাণিজ্য ও দুর্নীতি-অনিয়মের অভিযোগে ওমর ফারুক চৌধুরীকে সংগঠনের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। একই বৈঠকে সংগঠনের প্রেসিডিয়াম সদস্য চয়ন ইসলামকে আহ্বায়ক ও সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদকে সদস্য সচিব করে সপ্তম জাতীয় কংগ্রেস প্রস্তুতি কমিটি গঠন এবং যুবলীগের নেতৃত্ব নির্ধারণের বয়সসীমা সর্বোচ্চ ৫৫ বছর নির্ধারণ করে দেওয়া হয়।  এই অবস্থায় সংগঠনের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে বেশ কয়েকজনের নাম আলোচনায় উঠে আসছে। এই আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মণির ছেলে শেখ ফজলে শামস পরশ। চেয়ারম্যান পদে বর্তমান কমিটির দুই প্রেসিডিয়াম সদস্য আতাউর রহমান আতা ও অ্যাডভোকেট বেলাল হোসাইনের কথাও আলোচনায় রয়েছে।

এ বিভাগের আরোও সংবাদ