আজ শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ইং

আধ্যাত্মিক রাজধানী সিলেটের দৃষ্টিনন্দন রূপ দেখে মুগ্ধ দেশবাসী

বাংলাভিউ৭১ডেস্কঃ

বদলে যাচ্ছে দেশের উত্তরপূর্ব জনপদ সিলেট। দেশের আধ্যাত্মিক ও পর্যটন নগরী খ্যাত সিলেট নগরীকে সাজানো হচ্ছে নতুন রূপে। প্রকৃতি ঘেরা পূণ্যভূমি সিলেট নগরীতে যেন নতুনত্বের ছোঁয়া লেগেছে। পরিকল্পনার ছক অনুযায়ী সাজানো চলছে এ আধ্যাত্মিক ও স্মাট নগরীতে।

দেশের প্রথম ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের মাধ্যমে তারের জঞ্জালমুক্ত নগরীর গড়ে তোলার কাজ শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে নগরীর শাহ’জালাল (র.) দরগাহ এলাকা সব ধরণের তারের জঞ্জালমুক্ত হয়েছে।ভূগর্ভস্থ বিদ্যুৎ সংযোগের পাশাপাশি দেশের প্রথমবারের মতো সিলেট সিটি করপোরেশন এলাকায় নেওয়া হয়েছে কালার কোড ব্যবহারের উদ্যোগও।

উন্নত বিশ্বের বিভিন্ন সিটির মতো সিলেট নগরীর বিভিন্ন এলাকাও কালার কোড অনুয়ায়ী সবকটি স্থাপনার অ’ভিন্ন রঙে রঙিন হবে। আলাদা আলাদা ভবন হলেও সব সাইন বোর্ড থাকবে একই রঙয়ের।এছাড়া ইতোমধ্যে নগরীর গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে মহান আল্লাহ তায়ালা ও নবী হ’জরত মুহাম্ম’দ (সা.) এর নামে ভাস্কর্য নির্মাণ করা হয়েছে। দৃষ্টিনন্দন এ স্থাপনা আধ্যাত্মিক রূপ ফুটিয়ে তুলছে।পাশাপাশি সরকারি অর্থায়নে হাজারো কোটি উন্নয়ন যজ্ঞ চলছে এ সিলেট নগরীতে। সিলেট’কে আধ্যাত্মিক, পর্যটন ও স্মাট নগরী গড়ে তুলতে শুরু হওয়া চলমান উন্নয়ন কর্মে এক বছরের মধ্যে সিলেট নগরীর চির চেনা দৃশ্য বদলে যাবে বলে মনে করছেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি জানিয়েছেন সিলেট’কে একটি পরিক’ল্পিত ও পরিচ্ছন্ন ও দৃষ্টিনন্দন নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে যা যা করণীয় তার সবই করা হচ্ছে।

মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, পূণ্যভূমির ম’র্যাদা অক্ষুন রেখে সিলেট নগরীকে আধ্যাত্মিক ও পর্যটন নগরী হিসেবে সাজানো হচ্ছে। নগরী গুরুত্বপূর্ণ চত্বরগুলোকে দৃষ্টিনন্দন করতে বিশেষ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। দেশের প্রথম পাতাল বৈদ্যুতিক সংযোগের কাজ শুরু হয়েছে। হ’জরত শাহ’জালাল (রহ.) মাজার এলাকা থেকে ভূগর্ভস্থ বিদ্যুতায়ন প্রকল্পের সফল সরবরাহ চালু হয়েছে। উন্নত রাষ্ট্রের আদলে দেশের প্রথম ভূগর্ভে বিদ্যুৎ লাইন থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে। তুলে নেওয়া হচ্ছে রাস্তার দুপাশের বিদ্যুতের খুঁটি ও অন্যান্য সার্ভিসেস লাইনের তার। ফলে তারের জঞ্জাল থেকে মুক্ত হয়েছে শাহ’জালাল মাজার এলাকা। বেড়েছে এই এলাকার সৌন্দর্য।’সিলেট নগরীর সৌন্দর্য বর্ধন ও স্মা’র্ট সিটি হিসাবে রূপান্তরের লক্ষে্ সিটি করপোরেশনের ২৭টি ওয়ার্ড আসবে কালার কোডের আওতায়। ২৭টিই ওয়ার্ডবে সাজবে অ’ভিন্ন রঙ।ইতোমধ্যে পরীক্ষামূলকভাবে হযরত শাহ’জালাল (র.) দরগা এলাকা সাজানো হয়েছে অ’ভিন্ন রঙয়ে। আধ্যাত্মিক ও পর্যটন নগরী সিলেট’কে পরিচ্ছন্ন ও দৃষ্টিনন্দন করতে এই প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে বলেও জানান আরিফুল হক চৌধুরী।

এ বিভাগের আরোও সংবাদ